ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী
ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী

ভারতের ইতিহাসে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদি রোববার (৯ জুন) সন্ধ্যায় শপথ গ্রহণ করেন।

ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরুর পর তিনি একমাত্র ভারতীয়, যিনি এত দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষমতায় থাকছেন।তবে দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকলেও এই প্রথম একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি তার দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল অনুযায়ী, ৫৪৩ আসনের মধ্যে ২৪০টি পায় বিজেপি।তাই বিজেপিকে এবার জোট সরকার গঠন করতে হচ্ছে।

সেই সঙ্গে জোটের মন্ত্রিত্বও ভাগাভাগি করতে হবে বিজেপিকে। শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে নয়াদিল্লিতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

জোটের বাধ্যবাধকতায় মোদিকে মন্ত্রিসভা নিয়েও নতুন করে ভাবতে হচ্ছে। এবারের মন্ত্রিসভায় আসতে পারে নতুনত্ব। একাধিক দায়িত্ব পেতে পারেন কয়েকজন মন্ত্রী।

তবে প্রধানমন্ত্রী ছাড়া নতুন মন্ত্রিসভার আর কেউ আজ শপথ গ্রহণ করবেন না।এবার মন্ত্রিপরিষদে সদস্য ৭৮ থেকে ৮১ জন হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, অর্থ ও পররাষ্ট্রবিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়গুলো থাকবে বিজেপির হাতে। এ ছাড়া শপথ নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ইস্পাত, বেসামরিক বিমান চলাচল এবং খনিজ সম্পদের মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়া মন্ত্রীদের।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী

সদ্য সমাপ্ত ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ৫৪৩টি আসনের মধ্যে এনডিএ জোট ২৯৩টিতে জয়ী হয়েছে। ইন্ডিয়া জোট ভোটের মাঠে শক্ত প্রতিপক্ষ হয়ে ২৩২টি আসনে জয়লাভ করে।

২০১৯ সালের সাধারণ নির্বাচনে কংগ্রেস ৫২ আসনে জয় লাভ করে। এবার তারা ৯৯টি আসনে জয়লাভ করেছে।টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদি।

সন্ধ্যায় নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি শপথ নেন। মোদির এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বেশ কয়েকজন বিদেশি সরকারপ্রধান ইতোমধ্যেই দিল্লি পৌঁছেছেন।

এবার শপথ নেওয়ার মাধ্যমে ভারতের ইতিহাসে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন মোদী।

এরআগে, জওহরলাল নেহেরু ১৯৫২, ১৯৫৭ ও ১৯৬২ মেয়াদকালে টানা তৃতীয়বার দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজকের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দেশটির রাজধানী দিল্লিতে জারি করা হয়েছে সর্বোচ্চ সতকর্তা। এদিন মোদির সঙ্গে শপথ নেবেন ৩০ মন্ত্রীও।

দেড় মাসেরও বেশি সময় ধরে সাত দফায় ভোটগ্রহণের পর লোকসভা নির্বাচনে আবারও জয়ী হয় বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। তাই তারাই আবার গড়ছে সরকার।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, প্রধানমন্ত্রী পদে নরেন্দ্র মোদি রোববার শপথ নিলেও, পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রিসভার শপথ কয়েকদিন পর হবে। তবে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মন্ত্রী পদে আজই শপথ গ্রহণ হবে।

প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি আজ ৩০ জন মন্ত্রী শপথ নিতে পারেন।এর মধ্যে বিজেপির মন্ত্রীদের সংখ্যাই বেশি হবে। জোটের অন্য দলগুলোর কয়েকজন সংসদ সদস্যও শপথ নিতে পারেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী

নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিট থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হবে।যে মন্ত্রীরা আজ শপথ নেবেন, তাদের আজ সকালেই ফোন করে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে।

বেশ কিছু সূত্রের বরাত দিয়ে বলা হচ্ছে, ভারতের এবারের পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রিসভার সদস্য সংখ্যা ৭৮ থেকে ৮১ জনের মধ্যে হতে পারে।এছাড়া এবারের মন্ত্রিসভায় খুব কম সংখ্যক মন্ত্রীকেই একাধিক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হবে।

শরিক দলগুলো বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দাবি জানালেও, গুরুত্বপূর্ণ চার মন্ত্রণালয়- স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, অর্থ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিজেপি নিজের হাতেই রাখছে।

আজই এই পদের মন্ত্রীরা শপথ নিতে পারেন। পাশাপাশি রেল, শিক্ষা, সড়ক ও পরিবহন, আইন, তথ্য প্রযুক্তি, স্টিল, কয়লা ও বেসামরিক বিমান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও বিজেপি নিজের হাতে রাখবে।

এই মন্ত্রীরাও আজ শপথ নিতে পারেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার সন্ধ্যায় শেখ হাসিনা তাঁর মেয়ে সায়মা ওয়াজেদকে নিয়ে নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

অনুষ্ঠানে শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, ভুটান, নেপাল, মরিশাস ও সিসিলির সরকার-রাষ্ট্রপ্রধানসহ আট হাজারের বেশি বিশিষ্টজন অংশ নেন। পরে রাষ্ট্রপতি ভবনে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর ভোজসভায় যোগ দেন তারা।

আজ সোমবার সকালে হায়দরাবাদ হাউসে একান্ত বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি। দুই নেতা ফের ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম আলোচনায় বসতে যাচ্ছেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, দুই প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আলোচনায় সাম্প্রতিক বছরগুলোর ধারাবাহিকতায় দুই দেশের সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়ার বিষয়টি গুরুত্ব পাবে।

এরই অংশ হিসেবে শেখ হাসিনার ভারতে পরিকল্পিত দ্বিপক্ষীয় সফরের বিষয়টিও আলোচনায় আসবে। মাস দেড়েকের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের কথা রয়েছে।

এদিকে ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে দিল্লিতে জারি করা হয়েছে সর্বোচ্চ সতকর্তা।

শপথগ্রহণকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠানস্থল রাষ্ট্রপতি ভবনে পাঁচ কোম্পানি আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ান ছাড়াও এনএসজি কমান্ডো, ড্রোন এবং স্নাইপার নিয়ে বহুস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে।

শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান চলার সময় যেকোনও অপরধমূলক বা সন্ত্রাসী হুমকি রোধ করতে দিল্লিতে নো-ফ্লাই জোন ঘোষণা করা হয়েছে।এই বিধিনিষেধ সোমবার পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।

আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য ধন্যবাদ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *